যাত্রীবাহী বাণিজ্যিক বিমান ভেঙে পড়ে মৃত্যু হল ২১ জনের। যদিও মর্মান্তিক এই দুর্ঘটনায় অলৌকিকভাবে বেঁচে গিয়েছে একটি ছ’বছরের শিশু সহ দু’জন। এদের মধ্যে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের হয়ে কাজ করা এক ইতালীয় চিকিৎসকও রয়েছেন। বর্তমানে তিনি সঙ্কটজনক অবস্থায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। ইতিমধ্যে আশ্চর্যজনকভাবে বেঁচে যাওয়া ব্যক্তিদের চিকিৎসায় তৈরি হয়েছে মেডিক্যাল বোর্ড।

রবিবার সকালে স্থানীয় জুবা ইন্টারন্যাশানাল বিমানবন্দর থেকে চার্টাড বিমানটি আকাশে ওড়ে। বিমানে ২০জন যাত্রী ছিল। হঠাত করেই বিমানটির সঙ্গে সম্পূর্ণ যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। এরপরেই বিমানটির খোঁজে শুরু হয় তল্লাশি অভিযান, দেখা যায় স্থানীয় একটি নদীতে ভেঙে পড়েছে বিমানটি। এরপরেই সেখানে ছুটে যায় উদ্ধারকারী দল।

জানা যায়, ১৯ আসনের ছোট ওই বাণিজ্যিক বিমানটি রাজধানী জুবায় যাচ্ছিল। স্বাভাবিকভাবেই অনুমান করা হচ্ছে, বিমানটিতে বেআইনিভাবে অতিরিক্ত যাত্রী বহন করা হচ্ছিল। যদিও, দুর্ঘটনার আসল কারণ তদন্তের রিপোর্ট হাতে পেলেই জানা যাবে বলেই জানিয়েছেন ওই কর্তা।

দক্ষিণ সুদানের রাজধানী ও দেশটির সবচেয়ে বৃহত্তম শহর জুবা।

Share