রাজনীতি হেডলাইন

পদ ছাড়ার ইঙ্গিত শেখ হাসিনার, সমস্বরে না বললেন নেতাকর্মীরা

নির্বাচনের জন্য এখন থেকে প্রস্তুতি নিতে ও জনগণের কাছে যেতে নেতা-কর্মীদের প্রতি নির্দেশ দিয়েছেন আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা। জাতীয় সম্মেলনের দ্বিতীয় দিনের অধিবেশনের সূচনা বক্তব্যে তিনি এ নির্দেশ দেন। রবিবার সকালে আওয়ামী লীগের ২০তম জাতীয় সম্মেলনের কাউন্সিল অধিবেশনে তিনি এ কথা করেন। এর আগে শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে সকাল ৯টা ৪০ মিনিটে ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউশন মিলনায়তনে কাউন্সিল অধিবেশন শুরু হয়।
আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার বক্তব্যে আগামী জাতীয় নির্বাচনের প্রসঙ্গ টেনে বলেন, ‘সামনে নির্বাচন, জনগণের কাছে যেতে হবে। তৃতীয় দফা নির্বাচনে জয়লাভ করতে হলে জনগণের দোর গোড়ায় যেতে হবে। উন্নয়নের কথা বলতে হবে।’
বক্তব্যের এক পর্যায়ে শেখ হাসিনা বলেন, ‘অমি চাই বেঁচে থাকতে থাকতে দলের নেতা নির্বাচন করে দলকে শক্তিশালী করে যাবো ।’ এ সময় কাউন্সিলররা দাঁড়িয়ে সমস্বরে ‘না, না’ বলে চিৎকার করে ওঠেন।
শেখ হাসিনা বলেন, ‘আওয়ামী লীগ আমার পরিবার। আওয়ামী লীগ আমার আপনজন। আমার সন্তানদের এত সময় দেইনি, আওয়ামী লীগকে যত সময় দিয়েছি।’
তিনি আরও বলেন, উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে আওয়ামী লীগের আবারও ক্ষমতায় আসতে হবে। সরকারের উন্নয়ন কর্মকা-ের ব্যাপক প্রচার করতে হবে। মানুষকে বোঝাতে হবে, আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকলে তাদের আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন হবে।’
এর আগে সকাল সাড়ে ৯ টায় শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে শুরু হয় সম্মেলনের তৃতীয় অধিবেশন। গঠনতন্ত্র ও ঘোষণাপত্রের সংশোধনী প্রস্তাব নিয়ে আলোচনা শেষে অনুমোদন করবেন কাউন্সিলররা। এরপর বিলুপ্ত হবে বর্তমান কমিটি।
আজকের অধিবেশনে আওয়ামী লীগের নতুন সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক নির্বাচন করবেন কাউন্সিলররা। ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউটে চতুর্থ অধিবেশনে কাউন্সিলরদের ভোটে ঠিক হবে দলের নতুন নেতৃত্ব।
সন্ধ্যায় সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের নাম ঘোষণার পর নির্বাচিত সভাপতি সংক্ষিপ্ত বক্তব্য দেবেন। এর মধ্য দিয়ে শেষ হবে আওয়ামী লীগের ২০তম জাতীয় সম্মেলন। সভাপতি হিসেবে আবারও শেখ হাসিনাকেই চাইছেন কাউন্সিলররা। সজীব ওয়াজেদ জয়কে দেখতে চান নেতৃত্বে। তবে সাধারণ সম্পাদক পদে পরিবর্তন হবে কি না, তা জানতে অপেক্ষা করতে হবে সম্মেলন শেষ হওয়া পর্যন্ত।