দৃশ্য-২৫
ড্রইং রুম/দিন
সুমনা,
সুমনা ড্রইং রুমে প্রবেশ করে দরজা খুলবে।
কাট টু

দৃশ্য-২৬
শিড়ি/দিন
সুমনা, গনেষ, রাজন
সুমনা দরজা খুলেই দেখবে। গনেষ বিশ্রী ভাবে হাসছে। তার এক হাতে ময়লার বালতি।
সুমনা : কাল সকালে এসো তোমার সাথে কথা বলব…।
গনেষ : হাসবে….
সুমনা : বললামতো কাল এসো….
স্টপ গেইট সটে গনেষের যায়গায় রাজনকে দেখা যাবে।
রাজনা : কি বলছ! (রাজনা সুমনার গাল ধরে নাড়াবে ) কি হয়েছে..কাকে কাল আসতে বলছ!
সুমনা : (সম্মিত ফিরে পাবে ) উম…ময়লা ওয়ালা…
রাজন : ময়লা ওয়ালা আসবে কোথা থেকে সেতো..
সুমনা : (শিড়ীতে পরে থাকা বাশিটি দেখাবে) ঐ যে..
রাজন : (সুমনাকে ধরে) চল..
সুমনা : (বাজার ব্যাগ দেখিয়ে) এগুলা কি?
রাজন : বাজার রান্না করবে তার পর খাব।
সুমনা : না আজ দুজনে বাইরে খাব আমার কাছে টাকা আছে চল এগুলো রাখা।
শিড়ীতে দাড়িয়ে বাজারের ব্যাগ ভিতরে রেখে দরজা লক করে শিড়ি বেয়ে নিচে নেমে আসবে। সুমনা বাশিটির দিকে খেয়াল করবে। পা দিয়ে শরিয়ে দিবে।
ফ্রেম আউট
কাট

দৃশ্য-২৬
রাস্তা/দিন
রাজন, সুমনা, কিছু পুলিশ।
গেইট থেকে বের হয়ে রিক্সা নিবে। কিছু দুর এগুতেই দেখবে একটি গেইটের সামনে কিছু পুলিশ জটলা বেধে আছে। তাদের দিকে তাকাবে। সুমনা ভয় পাবে। অন্য দিকে তাকাবে। ফ্রেম আউট হবে।
কাট টু

দৃশ্য-২৭
রেস্টুরেন্ট/দিন
সুমনা, রাজন
দুজনে রেস্টুরেন্টে প্রবেশ করবে ফ্রেম ইন। একটি টেবিলে বসবে।
রাজন : এখানে নিয়ে এলে কেন?
সুমনা : খাব।
রাজন : এখানে তো…
সুমনা : আমার কাছে অনেক টাকা আছে..
রাজন : অবাক হয়ে তাকাবে।
সুমনা : (বলতে গিয়ে থেমে যাবে স্বগত) রাজনকে এখনি বলব না। সুমনা ব্যাগ থেকে কএকটি ৫০০ টাকার নোট বের করে দেখাবে। সংসার খরচ থেকে বাচিয়ে রেখেছিলাম।
রাজন : (হাসবে।)
ওয়েটার আসবে সুমনা খাবার ওয়াডার দিবে।
কাট টু

দৃশ্য-২৮
শিড়ী/দিন
বাড়ি ওয়ালা, কিছু পুলিশ।
ওসি : এই ফ্লাটে কে থাকে রুম তালা কেন?
বাড়িওয়ালা : এই বাড়িতে কেউ থাকেনা মানে তেমন কেউ থাকেনা। হাসব্যান্ড ওয়াইফ ছেলেটি সকালে বের হয়ে যায় রাতে আসে।
ওসি : কিন্তু এই সময়ে তালা কেন?
রাড়িওয়লা : ওয়াফের শরির খারাপ মানে ছেলে পুলে হয় না তাই হয়তো ডাক্তারের কাছে গেছে। আপনি নিশ্চিন্তে থাকতে পারেন এই বাড়িতে এমন কোন ঘটনা ঘটবে না। উপেরে চলেন।
ওসি : চলুন..
সকলে উপরে যাবে।
কাট